সূরা ইয়াসীনের বরকত ও ফযীলত।



সূরা ইয়াসীনের বরকত ও ফযীলত।

১: নবী করীম (সাঃ) বলেছেন, যে ব্যক্তি নিয়মিতভাবে এ সূরা পাঠ করবে তার জন্য বেহেশতের আটটি দরজা উম্মুক্ত থাকবে। সে যেকোন দরজা দিয়ে প্রবেশ করতে পারবে।

২: অন্য হাদিসে আছে, সূর্য উঠার সময় এ সূরা পড়লে পাঠকের সকল প্রকার অভাব দূরীভূত হয়ে যাবে।

৩: যেকোনো উদ্দেশ্যে এ সূরা পাঠ করলে আল্লাহ পাঠকের উদ্দেশ্যে পূর্ণ করে দেন।

৪: এ সূরা একবার পাঠ করলে দশ খতম কুরআন পাঠের সওয়াব লিখা হয় ও পাঠকের সকল গোনাহ মাফ হয়ে যায়।

৫: অন্য হাদীসে আছে, রাতে শোয়ার পূর্বে এ সূরা পড়ে শুইলে নিষ্পাপ অবস্হায় ঘুম থেকে জাগ্রত হবে।

৬: এ সূরায় কুরআনের সকল গুণের সমন্বয় সাধিত হয়, এ জন্য নবী (সাঃ) এ সূরাকে কুরআন মাজীদের অন্তর বলে আখ্যায়িত করেছেন।

৭: হযরত আলী থেকে বর্ণিত নবী কারীম (সাঃ) বলেছেন, সূরা ইয়াসীনের আমল কর। উহাতে দশটি ফায়দা আছে। উহা পাঠ করলে ক্ষুধা দূরীভূত হয় এবং বস্ত্রের ব্যবস্থা হয়, বিবাহ হতে যার দেরী হয়, সে নিয়মিত পাঠ করলে শ্রীঘ্রই তার বিবাহ হবে। ভয় এবং বিপদ গ্রস্ত ব্যক্তি পাঠ করলে ভয় ও বিপদ থেকে রক্ষা পাবে। কোন ব্যক্তি কারাগারে আটকা পড়লে শীঘ্র মুক্তি পাবে। মুসাফির পাঠ করলে বন্ধু পাবে। এবং হারিয়ে যাওয়া জিনিস ফিরে পাবে। মুমূর্ষু ব্যক্তির পাশে পাঠ করলে সে ব্যক্তির মৃত্যু কষ্ট সহজ হবে। রোগাক্রান্ত ব্যক্তি পাঠ করলে আরোগ্য হবে।

Post a Comment

1 Comments

Anonymous said…
অনেক ভালো পোস্ট এমন ইসলামিক পোস্ট আরো চাই