যাকে ভালবাসবে তাকে এত পরীক্ষা কর কেন? কেন তাকে অকারণে কষ্ট দাও?


যাকে ভালবাসবে তাকে এত পরীক্ষা কর কেন? কেন তাকে অকারণে কষ্ট দাও? ,যখন তুমি কাউকে খুব বেশি ভালবাসবে, তখনই সে তোমার ভালবাসার পরীক্ষা নিতে শুরু করবে, love kosto, love is problem, love is sad, ভালোবাসার গল্প, BREAK-UP love, জীবনের গল্প, ভালোবাসার মায়া, ভালোবাসার কষ্ট, ভালোবাসার এতো মায়া, Self Love, ভালোবাসার অবহেলিত কথা, বাংলা ভালোবাসার গল্পগুজব, ভালোবাসার সংগৃহীত গল্প, Valentines day Love Story, ভালোবাসার পরীক্ষা, ভালোবাসা পাওয়ার পরীক্ষা
image Google

যখন তুমি কাউকে খুব বেশি ভালবাসবে, তখনই সে তোমার ভালবাসার পরীক্ষা নিতে শুরু করবে,

নানা ভাবে তোমাকে কষ্ট দিবে, অপমান করবে। কারণ হয়তো সে দেখতে চাইবে এত অপমান, ঘৃণা করার পর ও তুমি তাকে ভালোবাসো কিনা। 

কিন্তু এরকম করাটা হয় মহা ভুল, কারণ কারো অবহেলা কেউ পছন্দ করে না। অতিরিক্ত সন্দেহ একটি সুন্দর রিলেশন নষ্ট করে ফেলে। 

আরে যাকে ভালবাসবে তাকে এত পরীক্ষা কর কেন? কেন তাকে অকারণে কষ্ট দাও?

পরে যখন সে তোমার অবহেলা পেয়ে চলে যায়, তখন তুমি তাকে মিস করতে শুরু করো বড়ই অদ্ভুততোমাদের চিন্তা-ভাবনা। 

শুনো তোমাকে বলছি, যে তোমাকে অবহেলা করে, অপমান করে তাকে বার বার ভালোবাসি কথাটা বলার দরকার নেই, 

কারণ যে ভালোবাসার সে তোমাকে এমনিতেই ভালোবাসবে, তুমি যেমন আছো, যে অবস্থায় আছো সেভাবেই তোমাকে ভালোবাসবে,

তাকে ইমপ্রেস করার জন্য রোমিও কিংবা মেহজাবীন হওয়ার দরকার নেই ভালোবাসতে কোন কারণ লাগে না, 

কোন পজিশন লাগে না, লাগে শুধু একটা পবিত্র মন যে মনে তোমার ভালবাসার মানুষটির জন্য অফুরন্ত ভালোবাসা থাকবে।

একটা কথা মনে রেখো বন্ধু, নিষ্ঠুর এই পৃথিবীতে সবাই স্বার্থ খুঁজে, স্বার্থ ছাড়া মানুষ কোন কাজ করে না (একমাত্র বাবা-মা ছাড়া)

কিছু মানুষ আছে যারা তোমার জীবনে আসবে স্বার্থ হাসিল করার জন্য, তারপর জীবনটাকে নতুন ভাবে সাজিয়ে/জীবনের মূল্য বুঝিয়ে নিঃশব্দে চলে যাবে,

আর রেখে যাবে কিছু অদ্ভুত স্মৃতি যা তুমি কখনই ভুলতে পারবে না। যদি এসব থেকে মুক্তি পেতে চাও, তাহলে তোমাকেও স্বার্থপর হতে হবে।

জীবনেও চলার পথে হাজারটা প্রপোজাল পাবে তুমি, অনেক মানুষ তোমার জীবনে আসতে পারে, কিন্তু সেই কাঙ্ক্ষিত একজন সঠিক সময়ে তোমার জীবনে আসবে। 

তার আগে ভুল কেউ এসে তোমার জীবনটা তছনছ করে দিতে পারে, এক্ষেত্রে অনেকেই ভেঙ্গে পরে, অনেকে অন্ধকার পথে পা বাড়ায়, 
কিন্তু বন্ধুরা ভেঙ্গে গেলে চলবে না। 

অনেকে আবার প্রতিশোধ নেয়ার জন্য একাধিক রিলেশন করে তারপর ধোঁকা দেয়, কিন্তু এটা মোটেও ঠিক নয়, একটি খারাপ মানুষের জন্য বাকি যারা ভালো তারা কেন কষ্ট পাবে? 

এভাবে সার্কেল চলতে থাকলে একসময় পৃথিবী থেকে সত্যিকারের ভালোবাসা হারিয়ে যাবে।
তা ছাড়া অনেক ছেলে/মেয়ে বলে যে "সব মেয়ে/ছেলেই একরকম, সবাই খারাপ"একটি খারাপ ছেলে/মেয়ের জন্য আপনি কেন বাকিদেরকে দোষ দিবেন??

একে অপরকে দোষ না দিয়ে আসুন নিজে ঠিক হই। কাউকে খুব বেশি ভালোবাসা অপরাধ নয়, অপরাধ হয় তখন যখন তুমি কাউকে ভালোবেসে ধোঁকা দিবে ভালোবাসার দোহায় দিয়ে অন্যায় আবদার করবে। 

যখন তুমি কাউকে অন্ধের মত ভালোবাসবে। অন্ধ লোক যেমন অপরের সাহায্য ছাড়া চলতে পারে না
ঠিক তেমনি যারা অন্ধভাবে ভালোবাসে তারা নিজের কথা, নিজের ফ্যামিলির কথা চিন্তা না করেই অনাকাঙ্ক্ষিত দুর্ঘটনা ঘটিয়ে ফেলে। 

একটা কথা মনে রেখো বন্ধুরা, তোমার জীবন একমাত্র তোমারি, এই জীবন অন্য কারো জীবনের পরিপূরক হবে না, কারণ জীবন একটাই। 

জীবনে চলার পথে কোন পদক্ষেপ নেয়ার আগে একবার অন্তত নিজের. ফ্যামিলিকে জানাও, তোমার ক্ষতি হোক এমন কিছু তারা কখনই চাইবেন না।

কোন শর্ত বা অঙ্গীকার দিয়ে ভালোবাসা টিকে থাকে না, ভালোবাসা টিকে থাকে পবিত্র বিশ্বাসে। ভালোবাসা পেতে ও দিতে প্রয়োজন সুন্দর একটা পবিত্র মন।

বিশ্বাস হল ভালবাসার প্রধান সূত্র ও ভালবাসার মূল বস্তু।

পরিশেষে ছেলে-মেয়ে সবাইকে বলছি, কাউকে ভালবাসার আগে নিজেকে ভালোবাসো, তাহলে অপরের ভালবাসার মর্যাদা বুঝতে পারবে।
আর,পবিত্র মনে সঠিক মানুষটির জন্য অপেক্ষা করো,সেই মানুষটি সঠিক সময়ে তোমার জীবনে এসে অগোছালো জীবনটাকে গুছিয়ে তুলবে।

এটাই হচ্ছে সত্যিকারের ভালোবাসা

Post a Comment

0 Comments