আহ জীবনটাকে এভাবে নষ্ট করে পেলছি আগে যদি জানতাম!

আহ জীবনটাকে এভাবে নষ্ট করে পেলছি আগে যদি জানতাম! 15-25

আহ জীবনটাকে এভাবে নষ্ট করে পেলছি আগে যদি জানতাম! ১৫ - ২৫ অবহেলা জীবন


১৫-২৫ এই বয়সে তোমাদের সবার কাছে জীবনকে চালানোর জন্য দুইটি অপশন থাকে। প্রথম অপশন যেটা বেশীর বাগ মানুষে করে থাকে। Student Life, Enjoyment Life, মজা করো গুরো পেরো। বন্ধুদের সাথে পাড়ার Club এ বসে আড্ডা মারো। সকালে ঘুম থেকে উঠে Brush করার আগে এক ঘন্টা Facebook News feeds Scroll করে নাও।

কালকে আপলোড করা পিক/ছবি/টেক্সট পোস্টে/ কয়টা Love, like, Haha, sad, Angry, রিয়েক্ট এসেছে তা Count করে নাও। Result কেমন হবে ওসব চিন্তা করো না। আরে বাবা মা এইযে বলে পড় পড় সারাদিন ও সব বেকার কথা। ওদের বলো এইতো Enjoy করার বয়স তোমরা এ বয়সে কি জানবে। এই বয়স চলে গেলে আর ফিরে আসবে না কি।

বন্ধুদের সাথে ঘন্টার পর ঘন্টা মোবাইলে গল্প করো। Youtube দিনে ৪,৫ ঘন্টা ভিড়িও দেখো আরে ভুলেই তো গেছি গেইম খেলো। রাতে ২,৩ টায় ঘুমাও। সকালে ১১,৩০, টায় উঠ আরে এটাই তো Best Life । Career কথা একধমই ব্যাবনা, ওসব পরে ভাবা যাবে। এই বয়সে যারা Career তৈরির পিছনে পরিশ্রম করছে তারা তো বোকা। শুধুু শুধুু জীবনের Best Enjoy করার টাইম টা নষ্ট করছে। এভাবে চলতে থাকোক কিন্তু হঠাৎ একদিন দেখবে তোমার বয়স ২৮-৩০ চুই চুই।

এই বার শুরু হবে Return ২৫ অবদি যা যা করেছো তার Return, যাদের দেখে নিজের ২০-২৫ বছর বোকা বলেছিলে। তারা মানি যারা তখন নিজের Career Planning করেছিলো। যারা ঐ সমম গেইম খেলে বা আড্ডা মেরে Time Waste করার বদলে। নতুন কিছু Skills শিখে ছিলো। হঠাৎ দেখবে তারা তোমার ধারা ছোঁয়ার বাহিরে ছলে গেছে। Already তারা নিজের Life Successful, আর তুমি? তুমি তো নিজের Life কে Enjoy করতে ব্যাস্ত ছিলে। হঠাৎ ৩০ এ গিয়ে মনে হবে। যাহ এবার আমি কি করবো? না তো আমার Marks ভালো। না তো আমি Extra কোনো Skills শিখেছি। না তো নিজের শরিলের দিকে ঠিক ঠাক নজর দিয়েছি। Teenage কে Full Potential Enjoy করতে গিয়ে। নিজের তো কিছুই Improvement করি নি।

এবার শুরু হবে টেনশন কিভাবে জীবন ১৭৯ Degree বদলে যাবে। কল্পনাও করতে পারবে না। তোমার যে বন্ধু গুলো ১৫- থেকে ২৫ এ Enjoyment কম করে। নিজের উপর কাজ করেছিলো। তারা নিজের বাবা মাকে হয়তো তখন বিদেশ গুরতে নিয়ে যাবে। আর তুমি? তোমার ও ইচ্ছা হবে। কিন্তু উপায় থাকবে না। এই ভাবে চলতে চলতে একদিন তোমার ও বয়স হবে। আর তোমার সেই বন্ধুর ও বয়স হবে। দুই জনে প্রথিবী ছেড়ে ছলে যাবে। কিন্তু তোমার ছোখে যাওয়ার সময় থাকবে শুদু আপচুছ। আর ওর ছোখে থাকবে পরিতিপ্তী পুর্নতা। তুমি ছোখের জল নিয়ে ভাববে। যদি যদি এই বয়স টা Enjoyment ছেড়ে পালতু সময় নষ্ট না করে যদি পড়তাম।

অনতত পক্ষে Futures এ কিভাবে Career তৈরি করবো। কিভাবে নিজের শরিলের দিকে নজর রাখবো। কিভাবে ভবিষ্যৎ এর জীবন টা বাছবো সেটার Planning করতাম। তাহলে আজকে এতো আপচুছ করতে হতো না। আর বিশ্বাস করো এই ভাবে চলে যাওয়ার পরে। তোমার বাড়ির দুই একজন লোক ছাড়া, আর কেও ই তোমাকে বেশিদিন মনে রাখবে না। বাস্তব এটাই, আর তোমার মতই সেই মানুষটির ছোখেও পৃথিবী ছেড়ে চলে যাওয়ার সময় থাকবে জল, সে ছোখে জল নিয়ে, তৃপ্তি হাসি হাসবে। আর সে এই ১৫-২৫ এই সময় টার কথায় সে ভাববে ভাগ্যিস।

আমি নিজের জীবনের সবচেয়ে মূল্যবান এই সময় টাতে নিজের Skills কে Developed করেছিলাম। ভাগ্যিস নিজের Passion কে নিজের ভালোবাসার কাজকে Follow করেছিলাম। তাই আজকে আমার নিজেকে রাজা মনে হচ্ছে। মনে হচ্ছে জীবন টাকে বাঁচার মত বাঁচলাম। আর এ রোকোম মানুষরা সমাজের মধ্যে এমন কিছু তৈরি করে যায়। যা তার নাম কে, সবাইর মনে তার চলে যাওয়ার পরেও বহুদিন বহুবছর বাঁচিয়ে রাখে।

এবার তোমাদের পশ্ন করি সত্যি করি বলতো। তুমি কোন জীবনটা চাও?

তোমার এই বয়স টাকে পালতু Employment এ নষ্ট করে জীবনের শেষে এটা বলতে যে। যদি ২৫ - বছর আগে এ কথা গুলো জানতে পারতাম তাহলে জীবন টা বদলে যেতো, না কি এ বয়সে নিজের Future নিজের Career Planning করে, নিজের Passion কে Follow করে। আর তার উপর Action নিয়ে সফলতা সেই উচ্ছ শিখরে পৌছে এটা বলতে ভাগ্যিস ২৫- বছরের আগে ও ভাবে জীবন টা কাটিয়েছিলাম। এবার চয়েস তোমার কাছে আজই বাভো।

এই লেখাটি যদি আপনার উপকারে আসে। তাহলে শেয়ার করতে ভুলবেন না। আপনার একটি শেয়ারে অনেকের উপকারে আসতে পারে। ধন্যবাদ

©obohelajibon/কাউছার


Post a Comment

0 Comments