সন্তান প্রসব হওয়া কালীন ও তৎপরবর্তি সুন্নাত ও আদব শিক্ষা দেওয়া।





সন্তান প্রসব হওয়া কালীন ও তৎপরবর্তি সুন্নাত ও আদব শিক্ষা দেওয়া।


১। সন্তান প্রসব কালেও প্রয়োজনের অতিরিক্ত কাপড় খোলা উচিত নয়, তদ্রূপ প্রসুতির নিকটে প্রয়োজনের অতিরিক্ত লোক থাকাও উচিত নয়। 


২। সন্তান ভূমিষ্ট হলে প্রথমে তাকে সামান্য গরম পানি দিয়ে মুছে সাফ করে নিবে, অতঃপর তার ডান কানের নিকটে আযান ও বাম কানের নিকটে ইকামাতের শব্দ সমূহ (হাল্কা আওয়াযে) বলবে। (তিরমিযী ও আবু দাউদ শরীফ ৩৪০) 



৩। কোন বুযুর্গ ব্যক্তি দ্বারা তাহনিক করাবে। অর্থাৎ সামান্য মধু (বা খেজুর চিবিয়ে) ঐ বুযুর্গ ব্যক্তির মুখে নিয়ে আংগুল দিয়ে বাচ্চার মুখে দিবে এবং বাচ্চার জন্য দুয়া করবে। (বুখারী শরীফ) 



৪। বাচ্চার বয়স সাত দিন হলে তার সুন্দর নাম রাখবে। (আবু দাউদ শরীফ) 


ফায়দা: নবী (আঃ) বা সাহাবায়ে কেরাম (রাঃ) এর নাম সমুহের সাথে মিল রেখে নাম রাখা উত্তম। 



৫। সপ্তম দিনে আকীকা করবে। যদি সপ্তম দিনে সম্ভব না হয় তাহলে ১৪তম দিন অথবা ২১তম দিনে আকীকা করবে, তাও যদি সম্ভব না হয় তাহলে পরবর্তিতে যখন সামর্থ হয় করবে। (আবু দাউদ শরীফ)  




৬। ছেলের আকীকায় দুটি ছাগল আর মেয়ে আকীকায় একটি ছাগল যবেহ করবে। (তিরমিযী ও ইবনে মাযাহ শরীফ) 



৭। আকীকার গোস্ত কাঁচা অথবা রান্না করে যেভাবে ইচ্ছে বন্টন করা যায়। (বেহেশতী জেওর তয় খন্ড) 




৮। আকীকার গোস্ত মা, বাবা, দাদা, দাদী, নানা, নানী, ধনী, দরিদ্র সকলেই খেতে পারে (বেহেশতী জেওর তয় খন্ড) 




৯। সপ্তম দিনে বাচ্চার মাথা মুন্ডিয়ে চুলের ওযনের পরিমাণ রৌপ্য দান করে দিবে। (তিরমিযী শরীফ) 




১০। মাথা মুন্ডানোর পর মাথায় জাফরান লাগিয়ে দিবে। (আবু দাউদ শরীফ) 




১১। সন্তানের বয়স সাত বৎসর হলে তাকে নামায ও ধর্মের প্রয়োজনীয় অন্যান্য বিষয় শিক্ষা দিবে এবং নামাযের হুকুম করবে।




১২। দশ বৎসর বয়স হলে নামাযের ব্যাপারে কঠোরতা করবে এবং প্রয়োজনে নামাযের জন্য শাস্তি দিবে। যাতে নামায পড়তে অভ্যস্ত হয়ে যায়। (মিশকাত শরীফ ১ঃ৫৮ পৃঃ) 



বিঃ দ্রঃ বর্তমানে বাচ্চাদেরকে অতি আদর করে নষ্ট করা হচ্ছে, সাথে সাথে একথা বলে নিজেকে প্রবোধ দেয়া হচ্ছে যে, বড় হলে এমনিই ঠিক হয়ে যাবে। মনে রাখা দরকারি যে, ভীত্তি ঠিক না হলে উপরের বিল্ডিংও ঠিক হয় না। কাজেই শুরু থেকেই সন্তানকে উত্তম চরিত্রবলী শিক্ষা দিতে হবে, যাতে পরে পস্তাতে না হয়। 



©অবহেলা জীবন/obohelajibon.info

Post a Comment

0 Comments