শেষ চেষ্টা তোমাকে সফল হতেই হবে! যদি তুমি ১% চেষ্টা করো?




আমরা অসফল কখন হই জানো? যখন আমরা একবার শেষ চেষ্টা না করে হাল ছেড়ে দিই। সফলতা আর অসফলতার মধ্যে তফাৎ শুধু শেষ একবার চেষ্টার। তোমার জীবনে যখন বারবার ব্যার্থতা আসে, যখন তুমি একটা কাজে নিজের সমস্তটা দিয়েও বারবার অসফল হও, তখন এর মানে হলো তোমার লক্ষ্য তোমার স্বপ্ন অনেক বড়। আর যেহেতু তোমার লক্ষ্য তোমার স্বপ্ন অনেক বড়, সেহেতু সহজে তা পূরণ হওয়ার নয়।

এমএস ধ্বনি ফিল্ম এর একটা জায়গায় দেখানো হয়, যে সিলেক্টর রা যখন সে ভালো পারফরমেন্স করার পরেও তাকে সিলেক্ট না করেও বাদ দিয়ে দেয়। তখন সে তার বন্ধুদের একটা কথায় বলে, সে বলে যে সে বুঝে গেছে ইন্ডিয়া টিম এ চান্স পেতে গেলে আরো বেশি পরিশ্রম করতে হবে। তার ড্রীম এতোটাই বড় ছিলো, যে এতো পরিশ্রমের পরেও যখন এতো বড় ব্যার্থতা তার জীবনে এসেছিলো। সে হাল না ছেড়ে আর একবার শেষ চেষ্টা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলো। আগের থেকে ডাবল এফোর্ট দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছিলো। সে বুঝে গেছিলো স্বপ্ন যখন এতো বড়, তখন তা সহজে পূরণ হওয়ার নয়।

তোমার-আমার ক্ষেত্রও একিই জিনিস প্রযোজ্য। আমি জানি তুমি হয়তো নিজের কাজে খুবই খারাপ ভাবে অসফল হয়েছো।এতোটাই খারাপ ভাবে তোমার সব চেষ্টা ব্যার্থ হয়েছে। যে তুমি সামনে হয়তো আশার কোনো আলো দেখতেই পাচ্ছো না। পড়ে যাওয়ার পরে তুমি যে উঠে দাঁড়াবে,তার কোনো কারণ পর্যন্ত তুমি খুঁজে পাচ্ছো না। আমি জানি, তোমার মনে হচ্ছে সবকিছু শেষ হয়ে গেছে কিচ্ছু বাকি নেই।আর তুমি ভেতর ভেতর বেঁচে থেকেও মরে গেছো। কিন্তু বিশ্বাস করো তোমার কাছে এখোনো একটা অপশন বাকি আছে।

একবার শেষ চেষ্টা করার অপশন। একটু ঠান্ডা মাথায় চিন্তা করো, যে আগের বার চেষ্টা করার সময় কী কী ভুল তুমি করেছিলে. নিজেকে প্রশ্ন করো? যে তুমি আগের বার কাজটা করার সময় সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা কী করেছিলে? যা তোমার সাধ্যের মধ্যে ছিলো। তুমি কী চাইলে তার থেকে ১% ও বেশি চেষ্টা করতে পারতে,৯৯% আর ১০০% এর মধ্যে মাএ ১% এর তফাৎ। আর এই ১% এর তফাৎই একজনকে সফল বানায়, আর একজনকে বানায় অসফল।

আমি জানি না তোমার স্বপ্ন কতটা বড়! আমি জানি না তোমার লক্ষ্য ঠিক কতোটা উপরে! কিন্তু আজকে তোমাকে একটা প্রশ্ন করতে চাই, তোমার দেখা স্বপ্নকে পূরণ করার জন্য ১% বেশি এফোর্ট এর সাথে তুমি কি একবার শেষ চেষ্টা করতে পারো না? তুমি কি তোমার লক্ষ্যকে পূরণ করার জন্য আর একবার ব্যার্থতার সাথে লড়াই করতে পারো না?

তুমি আশা করি এটা জানবে যে বিখ্যাত বাস্কেটবল প্লেয়ার মাইকেল জর্দানকে তার স্কুল টিম এ একসময় সিলেক্ট পর্যন্ত করা হয়নি। কিন্ত সে হাল না ছেড়ে প্রতিবার ব্যার্থতার পরে একবার শেষ চেষ্টা করেছিল। তাই আজকে তাকে বাস্কেটবল এর চ্যাম্পিয়ন প্লেয়ার বলা হয়। আ্যালবার্ট আইন্সটাইন ৪ বছর বয়স পর্যন্ত কথা বলতে পারতেন না। আর আজকে দেখো তার আবিস্কার করা থিওরি এর জোড়ে আমরা মহাকাশ গবেষণায় কতটা উন্নতি করতে পেরেছি। এনারা যদি বারবার ব্যার্থ হওয়ার পরেও বারবার চেষ্টা করতে পারে,তুমি কেনো পারবে না। তোমার স্বপ্ন ও ছোট নয়। তোমারো জেতার অধিকার রয়েছে।

তুমি যদি আজকে হেরে গিয়ে ফিরে আসো, তাহলে যারা তোমাকে একদিন বলেছিলো তোর দ্বারা কিচ্ছু হবে না। যারা তোমার বড় স্বপ্নকে তাদের ছোট এক্সপেরিয়েন্স এর মাধ্যমে বিচার করে তোমাকে পাগল বলে তোমার সেন্টিমেন্ট এ আঘাত করেছিলো...তাদের কথায় তো সত্যি হয়ে যাবে। আর একবার শেষ চেষ্টা করে দেখোই না, তুমি হয়তো তোমার সফলতার সিঁড়ির শেষ ধাপ এ দাঁড়িয়ে রয়েছো। আর একটা শেষ চেষ্টা হয়তো তোমার আর তোমার সফলতার মাঝের সেই ধাপ।

আবারো বলছি ৯৯ আর ১০০ এর মধ্যে মাএ ১ এর তফাৎ। তাই যখনি হাল ছেড়ে দিতে মন চাইবে একটা কথা মনে রেখো, থমাস আলভা এডিসন যদি ৯৯৯ বার আনসাক্সেসফুল হওয়ার পরে একবার শেষ চেষ্টা না করতো তাহলে আজো হয়তো আমরা অন্ধকারেই থাকতাম। তাই হেরে যাওয়ার আগে, একবার শেষ চেষ্টা অবশ্যই করো। আর আমাকে কমেন্টে অবশ্যই জানিয়ো যে হাল ছেড়ে দেওয়ার আগে তুমি আর একবার শেষ চেষ্টা করবে কিনা।

obohelajibon/অবহেলা জীবন

Post a Comment

0 Comments