অপমানের আসল জবাব কিভাবে দিবেন? (মোটিভেশন) অবহেলা জীবন


image google

হতে পারে তুমি এক্সামে কম মার্কস পেয়েছো বলে তোমার রিলেটিভরা তোমাকে নিয়ে মজা করছে।

হতে পারে তুমি স্মার্ট না বলে তোমার বয় ফ্রেন্ড তোমাকে অপমান করে ছেড়ে চলে গেছে।

হতে পারে তোমার হাইট কম বলে বা ওয়েট বেশি বলে তোমার বন্ধুরা তোমাকে অপমান করে সবার সামনে তোমাকে নিয়ে মজা করে।

হতে পারে তোমার ব্যাংকে মাত্র ১৫,০০০ টাকা আসে শুনে তোমার গার্লফ্রেন্ড তোমাকে অপমান করে অন্য কারো হাত ধরে চলে গেছে।

হতে পারে তোমাকে কেউ লুজার বলে অপমান করেছে কেউ বলে তোর দ্বারা কিচ্ছু হবে না।

হতেই পারে কেউ বলেছে ছোটো লোক হয়ে চাঁদ ধরার স্বপ্ন দেখিস না।

হতে পারে কেউ এটাও বলেছে নিজের মুখটা আয়নায় দেখেছিস যে তুই আমাকে প্রপোজ করতে এসেছিস।

এরকম হাজার কারনে কখনও না কখনও তোমাকে হয়তো অপমানিত হতে হয়েছে কিন্তু আর নয়। এবার সময় এসেছে প্রতিশোধের এবার সময় এসেছে তাদের অপমান এর সঠিক জবাব দেবার। ভাইয়া তোমাকে উদারভাবে যারা ভাবে তুমি জীবনে কিছু করতে পারবে না। তারাও কোথাও যাচ্ছে না আর তুমিও কোথাও যাচ্ছো না।

খেলা হবে এখানে দেখা হবে এখনই করো নিজের ওপর কাজ আজকে থেকে অলসতা ছেড়ে উঠে দাঁড়াও নিজেকে করো ইমপ্রুভ। তুমি যে লোজার নয় সেটা কিন্তু তোমাকেই প্রমাণ করতে হবে। যে ছেলেটা বা মেয়েটা তোমাকে তোমার কোন দুর্বলতার জন্য অপমান করে অন্যের হাত ধরে চলে গেছে আর যাবার সময় তোমাকে সিম প্যাথি দেখিয়ে বলেছে। (ইউ ডিজাভ বেটার দেন) সত্যি প্রমাণ করার সময় এসেছে তাকে এটা বুঝিয়ে দেবার (যে ইউ বেটার দ্যান হিম অর হার) কিন্তু তার জন্য বসে কাঁদলে হবে না।

নিজেকে এতটা সাকসেসফুল বানাও যাতে আজ থেকে 5 বছর পরে সে যখন অন্য কারো হাত ধরে তোমার সাকসেসের কথা শুনে তোমার পুরনো নাম্বারটা ডায়াল করবে ফোন উঠাবে তোমার ম্যানেজার। তুমি যে পরীক্ষায় খারাপ নাম্বার পাওয়ার জন্য তোমার যে রিলেটিভরা তোমাকে অপমান করেছে সবার সামনে তোমাকে নিয়ে মজা করেছে এবার সময় এসেছে তাদের অপমানের জবাব দেওয়ার।

আজ থেকে নিজের হান্ডেট পার্সেন্ট দিয়ে দাও পড়ার পিছনে এতো বড় আর এতো দুর অব্ধি পড়ো যতদুর ফ্যামেলির কোন দিন কেউ করার কথা ভাবতেও পারেনি জবাব তো সেদিন দেয়া হবে যেদিন সেই ছেলেকে তোমাকে দেখে বলবে দেখ ওকে আর ওর মতো হওয়ার চেষ্টা কর।

আজকে সময় এসেছে সেই সমস্ত মানুষের অপমানের জবাব দেওয়ার যারা তোমার লোক হাইট ওয়েট তোমার বেঙ্গলিস নিয়ে একদিন মজা করেছিল। আর তোমাকে ইনসাল্ট করেছিল তাদের সামনে রেগে গিয়ে ঝগড়া করে কোন লাভ নেই। কারন তারা চাই তুমি রেগে যাও তাড়াতাড়ি তোমার মাইন্ডে ডিস্টার্ব করতে যাতে তুমি পড়াশোনা কাজ কোনটাই ঠিক ঠাক না করতে পারো।

তাদের অপমানের প্রতিশোধ নেওয়ার সব থেকে ভালো উপায় হলো নিজেকে ইম্প্রুভ করে যাওয়া। যাতে তোমার সাক্সেসি জোরে জোরে তোমার করা প্রতিটা অপমানের জবাব তাদের দিয়ে দেয়। নিজেকে এতটাই সফল বানাও যাতে তোমার সঙ্গে দেখা করার জন্য তোমার অফিসে এপারমেন্ট নিতে হয় আসলে যারা তোমাকে অপমান করেছে তোমাকে নিয়ে মজা করছে তাদের জন্য এই কাজটা সঠিক।

তাদের চিন্তাভাবনা এতটুকুতেই সীমাবদ্ধ কিন্তু প্রকৃতপক্ষে তারা খুবই বোকা। তারা জানে না যে তাদের করা অপমান তাদের বলা কথা তোমাকে জীবনে সাকসেসফুল হওয়ার জন্য কতটা ইন্সপায়ার করতে পারে। তারা জানে না যে তুমি এই অপমান কে মোটিভেশন করে ইম্প্রুভ করে তুমি প্রুফ করে দেবে।

যে সাক্সেসি হলো প্রতিটা করা অপমানের আসল প্রতিশোধ। তাই বন্ধু অপমানের বদলা যদি নিতেই হয় তাহলে মুখে বলে বা রাগ দেখিয়ে নিও না।

এতে যে তোমাকে অপমান করেছে সে যেটা চাই সেটাই করা হবে। বদলা যদি নিতেই হয় নিজেকে সাকসেসফুল বানিয়ে নাও নিজেকে সবদিক থেকে ইম্প্রুভ করে নাও যাতে ফিউচারে তোমাকে মুখে কিছু বলে তাদের প্রমাণ না করতে হয় তোমার সফলতা তোমার হয়ে সবকিছু প্রমাণ করবে!

কমেন্ট করে জানাও তুমি আমার সাথে সহমত কি না। এটাও বলে যাও। তুমি নিজেকে ইম্প্রুভ করার জন্য কি স্টেপ নিয়েছো। পোস্টি পড়ে যদি ভালো লাগে থাকে সবার সাথে শেয়ার করতে পারো! এরকম পোস্ট আরো পড়তে অবহেলা জীবন সাথেই থাকুন ধন্যবাদ:

obohelajibon/অবহেলা জীবন

Post a Comment

0 Comments