১২ টি কষ্টের ভালোবাসার ছোট গল্প - Koster Premer Love Short Story


কিছু কষ্টের গল্প, বিরহের ছোট গল্প, Valobasar choto golpo, ছোট কষ্টের গল্প, কষ্টের একটি গল্প, ভালোবাসার কিছু কষ্টের গল্প, বাংলা ছোট ভালোবাসার গল্প, গভীর ভালবাসার ছোট গল্প, রোমান্টিক কষ্টের গল্প, বাস্তব জীবনের কষ্টের গল্প, অবহেলার ছোট গল্প, কষ্টের গল্প sms, ভালোবাসার কষ্টের গল্প কাহিনী, অনেক কষ্টের গল্প ছোট, কষ্টের গল্প 2020, বাংলা কষ্টের গল্প ২০২১, কষ্টের ভালোবাসার গল্প, কষ্টের লেখা ছোট গল্প, খুব কষ্টের ভালোবাসার গল্প, বাংলা ছোট ভালোবাসার গল্প, ভালোবাসার ছোট গল্প fb, নতুন ভালোবাসার গল্প, রোমান্টিক প্রেমের ছোট গল্প, ভালোবাসার ছোট কবিতা, ব্যর্থ প্রেমের ছোট গল্প, মিষ্টি প্রেমের ছোট গল্প, ভালোবাসার কষ্টের ছোট গল্প, ভালোবাসার গল্প পড়তে চাই
১২ টি কষ্টের ভালোবাসার ছোট গল্প

১: Short Story - অবহেলিত ছোট গল্প - 

প্রতারনার গল্পের প্রতারকগুলোর মতোই একজন তোমার প্রিয় মানুষ গুলো!

আবেগ প্রকাশ করে সিমপ্যাথি পাওয়া যায়, ভালোবাসা না! চোখের জ্বলে কখনো সম্পর্ক বেধে রাখা যায় না বরং সে সম্পর্ক আরো অবহেলায় জর্জরিত হয়ে যায়.!

তুমি কেঁদে কেঁদে তার মন নরম করতে চাইছ, তুমি তোমার দূর্বল জায়গা গুলো তাকে সুন্দর ভাবে বুঝিয়ে দিচ্ছো, আত্মসম্মানবোধটাকে গলা টিপে মেরে ফেলছো শুধু তার কারনে!

তুমি ভাবছো একদিন হয়তো সে তোমার এই বোকা বোকা অনুভুতি গুলো বুঝবে, একদিন হয়তো সে আবার আগের মতো হয়ে যাবে, তাইতো এত এত অপমানের পরও তুমি তাকেই ফিরে পেতে চাইছো.!

তোমার এই ভালোবাসাময় ব্যাপারগুলো তার কাছে নিতান্তই সস্তা আবেগ, তুমি যতোই না খেয়ে থাকো, যতোই হাত কাটো, যতোই কেঁদে কেঁদে গাল লাল করে ফেলো তাতে তার কিছু আসে যায় না.!

বিলিভ মি, সে কখনো তোমার এই অনুভুতিগুলো বুঝবে না, কখনোই না.! চলে যাওয়া মানুষটা বেশিরভাগ সময়ই ফিরে আসে.! তুমি হয়তো ভাবছো, সে তোমার ভালোবাসার টানে ফিরে এসেছে.! না সে তোমার ভালোবাসার টানে ফিরে আসেনি.!সে ফিরে এসেছে তোমাকে আগের থেকে আরো বেশি কষ্ট দিতে.!

হ্যাঁ, তোমার ভালোবাসাটা স্পেশাল.! কিন্তু তুমি যাকে ভালোবাসো সেই মানুষটা তোমার চারপাশে ঘটে যাওয়া প্রতারনার গল্পের প্রতারকগুলোর মতোই একজন তোমার প্রিয় মানুষ গুলো!

তুমি যতো দূর্বল হবে, যতো স্যাক্রিফাইজ করবে সে ততো তোমাকে অবহেলা করবে.!তার দেয়া প্রতিটা কষ্ট নিরবে মেনে নিয়ে তুমি তার সিমপ্যাথি পাবে, ভালোবাসা না.!

৫০ বার কল মেসেজ দিয়ে একবার রেসপন্স পেয়ে তুমি খুশিতে লাফাচ্ছো.! মনে রেখো, এটা ভালোবাসা না, এটা তোমার অনুভুতির বিনিময়ে পাওয়া ছোট্ট একটা সিমপ্যাথি.!

একসময় বার বার চেষ্টা করেও তার সাথে কথা বলতে পারবে না.! হঠাৎই হয়তো একদিন বিরক্ত হয়ে সে তোমার নম্বরটা ব্লকলিস্টে রেখে দিয়ে দেবে,

তুমি সেদিন চিৎকার করেও কাঁদতে পারবে না.! দুমড়ে মুচড়ে ভিতরে ভিতরে শেষ হয়ে যাবে। তাতেও তার কিছু আসবে যাবে না.!

প্লিজ আমাকে ছেড়ে যেও না" এই হৃদয়বিদারক কথাটার মর্ম সে কখনোই বুঝবে না.!

তাই তোমার এই অমূল্য ভালোবাসা, অমূল্য চোখের জল, অমূল্য অনুভূতি গুলো সেখানেই প্রকাশ করো যেখানে তুমি গুরুত্ব পাও.!

যে মানুষটার জন্য তোমার আত্মসম্মান হারাতে হয়, সেই মানুষটা আর যাই হোক তোমাকে ডির্জাব করে না!


২: Short Story কষ্ট - ছোট গল্প - কখনও ভাবি নাই এইরকম কষ্ট হবে।


তার সাথে পরিচয় ৬ মাস।
তাকে আমার ভালো লাগছে, তাই সরাসরি বিয়ের প্রস্তাব দিলাম। আমার এলাকার মেয়ে কিন্তু পরিচয় ঢাকাতে।

বিয়েতে মেয়ে ও তার ফ্যামেলী সবাই রাজি।
তার মা আমাকে দেখে পছন্দ করছে মেয়ের জামাই হিসেবে। আমার থেকে ওয়াদা নিয়েছে যাতে তার মেয়েকে কষ্ট না দেই।

করোনার মধ্যে ঢাকায় সে আটকা পরে ছিল। আমি গ্রামে চলে আসি।

তারপর থেকে আমার সাথে যথারীতি খারাপ ব্যবহার। ভাবলাম বাসায় বন্ধী তাই মেজাজ খিটখিটে হয়ে গেছে।

যোগাযোগ বন্ধ, আমি অনেক ট্রাই করছি যোগাযোগ করার। সব জায়গা থেকে ব্লক। একদিন অন্য নাম্বার দিয়ে ট্রাই করলাম, তাকে পেলাম জানতে পারলাম সে গ্রামে চলে আসছে। ১৫ দিন হয়ে গেছে।

কষ্ট পেলেও কিছু বলি নাই।
তার সাথে মিট করলাম। রোজার
ঈদের ২ দিন আগে, তাকে একটু ঘুরলাম। সব ঠিকঠাক হল।

সে এবার এসএসসি পরিক্ষা দিল।
তার রেজাল্ট এর দিন ইমারজেন্সি ঢাকায় আসতে হয় আমার ব্যবসার কাজে।
তারপর আর বাড়ি যাওয়া হয় নাই।

তার মা জানে আমি বাড়িতে, তাই প্রায় বাসা থেকে আমার সাথে ঘুরতে যাবে বলে বের হয়। কিন্তু আমি ঢাকায়। আমার থেকে ১০০০- ২০০০ টাকা নিত। ভাইয়ার জম্মদিন, বন্ধুর জম্মদিন, আম্মুর মেরিজ এনেভাসারি বলে টাকা নিতে নিতে ২০০০০ টাকা পাওয়না হয়ে গেছি।

একদিন অন্য ছেলের সাথে ঘুরতে বের হয়।
তার মা জানতে পারে।
তখনই জামেলা শুরু, মেয়ে আমাকে বার বার রিকোয়েস্ট করে, আমি যেন স্বীকার করি যেন তার সাথে আমি ছিলাম।
এই বিষয় গুলো অনেক কথা কাটাকাটি হয়।

তার পর শেষ আমার প্রেম-বিয়ে।
এই মেয়ে ক্লাশ ৮ম প্রেম করছে, তাও এক বছর।

তবে এইটুকু বুজলাম মেয়েদের সাথে প্রেম করার সময়, মন দেওয়ার আগে ধ** দিতে হয় আগে।


৩: Short Story - কষ্টের ছোট গল্প- আমার এক্স গার্লফ্রেন্ড এখন আমার মামী এই কষ্টের দিন কবে শেষ হবে?


রিয়ার সাথে আমার রিলেশন শুরু হয়েছিলো ২০১৯ সালে এইচ. এস. সি ফাইনাল পরীক্ষার সময়।

আমরা একই সিটে বসে পরীক্ষা দিয়েছিলাম।
সেখান থেকে পরিচয়, বন্ধুত্ব, তারপর প্রেম।
রিলেশন টা ভালোই চলছিলো আমাদের।

যাইহোক, গত ১৯শে জুলাই (২০২০) হঠাৎ করেই রিয়া বলতেছে যে তার নাকি বিয়ে ঠিক করে ফেলছে!

আমি তাকে বলেছিলাম যে চলো পালিয়ে যাই। কিন্তু সে তাতে রাজী হয়নি, কারন আমি এখন কোনো চাকরী করি না, আর তার যার সাথে বিয়ে ঠিক হয়েছে সে নাকি সরকারি চাকরি করে! আর তার ফ্যামিলির বিপক্ষে গিয়ে সে নাকি কিছুই করবে না।

এমন কিছু বাহানা দেখিয়ে সে আমার সাথে ব্রেকআপ করে দেয়!
রিয়ার লাস্ট মেসেজঃ

আশা করি তুমি বুঝতে পেরেছো, আমার বিয়ে ঠিক হয়ে গেছে, এমতাবস্থায় তোমার সাথে আর কোনো সম্পর্ক রাখা সম্ভব না। ভুলে যাও আমাকে, আর আমি চাই না যে তুমি আমার বিয়ে তে এসে কোনো সমস্যা করো, তাই তোমাকে বিয়ের ব্যাপারে কিছু বললাম না। ভালো থেকো"

এরপর রিয়ার সাথে অনেকবার যোগাযোগ করার চেষ্টা করেছিলাম, কিন্তু কোনো লাভ হয়নি, আর তার ফোন টাও বন্ধ ছিলো।

সবকিছু এখানেই যদি শেষ হয়ে যেতো তাহলে হয়তো ভালোই হতো

(২১শে জুলাই ২০২০)
নানা আমাকে ফোন করে বললো যে ছোট মামার নাকি বিয়ে ২৩ তারিখে!
যাক.. ভালোই হলো, রিয়ার ছেড়ে যাওয়ার শোক মামার বিয়ে তে গিয়ে কাটাবো।

২৩ তারিখে ছোট মামাকে বর বেশে সাজিয়ে মেয়ে পক্ষের বাড়িতে গেলাম।
নতুন মামী কে দেখে আমি তো পুরাই অবাক..!

সে আর কেউ না. আমার ই এক্স গার্লফ্রেন্ড রিয়া! রিয়া ও আমাকে দেখে অবাক হয়ে গেলো। মানে আমার ছোট মামার সাথেই রিয়ার বিয়ে হচ্ছে!

রিয়া কে দেখার পর আমি লুকিয়ে সেখান থেকে বাড়িতে চলে আসলাম।

আর ভাবতে লাগলাম. আমার ই এক্স গার্লফ্রেন্ড এখন আমার মামী

হায় হায়... এটা কি হলো!
সমবয়সী রিলেশন

৪: Short Story - Love ছোট গল্পের কাহিনী - 

প্রেমে পড়ার আগেও আমাদের একটা পারফেক্ট লাইফ থাকে।

পরিবার ,বন্ধু ,আত্মীয়স্বজন নিয়ে মেতে থাকা একটা জীবন! হুট করে প্রেম আসে. একটা নতুন প্রাণী এসে জীবনের যোগ হয়,বাবা মায়ের পরে স্থান করে নেয়।

প্রেমিক মানে যোগ ফল. খুশির যোগফল, আনন্দ- বেদনার যোগফল, ভালোবাসার যোগফল! হৃদয় কে জাগ্রত করে, হৃদয় দিয়ে আকাশ ছোঁয়ার সাহস তৈরি করে, হৃদয়ে আগুন জ্বালায় কিন্তু মনে শান্তি বিরাজ করে! ভালোবাসা হলো কাউকে নিজের পুরো সত্তাকে ধ্বংস করে দেবার ক্ষমতা দিয়ে দেওয়া।

আমার কাছে ভালবাসার একটা সার্কেল. ভালোবেসে আমরা আঘাত পাই, আঘাত পেয়ে আমরা ঘৃণা করি, ঘৃণা করতে করতে ভুলে যেতে ট্রাই করি, ভুলে যেতে চাইতে গেলে. ভীষণভাবে মিস করতে থাকি, ইভেন্ চুয়ালি আবার ভালোবেসে ফেলি।

বন্ধুদের আড্ডায় হুট করে তাকে মনে পড়ার অনুভূতি, তার নামের উচ্চারণ রক্তের ধমনীতে টান অনুভব, প্রিয় গান, মুভি ,বই যখন বিন্দুমাত্র টানতে পারে না, তাকে ভেবে থাকার সময়টুকুতে. এইসব অনুভূতিগুলো সহস্ত্র সাধনার ধন! ভালোবাসা কোন নাউন না. ভালোবাসা হলো ভারব! যা দুজন দুজনের প্রতি প্রতিটা কাজেৱ মাধ্যমে কাছে আসার দুঃসাধ্যতা অর্জন করায়।

ভালোবাসা তার পার্টনারকে আন্ডারস্ট্যান্ড করতে শেখায়, কেয়ার করতে শেখায় ,সুখ-দুঃখ ভাগাভাগি করতে শেখায়, ভালোবাসা যা ছিল তার থেকে ডাবল ফিরে পাওয়া।

কিন্তু যে ভালবাসায় বাবা-মায়ের অবাধ্য, উদ্ধত হতে শেখায়, নিজের বন্ধু-বান্ধবের বিনাশ করতে শেখায়, নিজের প্রতি, পড়াশোনার প্রতি ক্যারিয়ারের প্রতি উদাসীনতা শেখায়, যদি একটা মানুষকে ভালোবাসাৱ দায়ে দাসত্ব বরণ করতে শেখায়, সে আর আমি তে বন্দী করে ফেলে. তাহলে সেটা কোন ভালোবাসা না সেটা একটা জেলখানা।

৫: Love Short Story - ছোট গল্প - আপনি প্রচুর ভালোবাসতে পারেন?


প্রচুর কেয়ার নিতে পারেন? তাহলে শিওর থাকেন আপনার কপালে এমন একটা পড়বে যেটা আপনার উল্টা!

ভালোবাসবে কম, কেয়ার ও নিবে কম! সবচেয়ে 'স্যাড' ব্যাপার হচ্ছে, এতো কিছুর পরেও আপনার এই 'বা**L' টা রেই ভাল্লাগবে!

৬: Premer Short Story কষ্ট - ছোট গল্প


যে চলে যায়. তারও আফসোস হয়! আপনার কথা কাউকে সে আফসোস করে বলতে গেলে বলে. সে আমাকে খুব ভালোবাসতো! অপরদিকে আপনি যখন কাউকে আফসোস নিয়ে তার সম্পর্কে কিছু বলতে যান।

তখন বলেন. আমি তাকে এখনো খুব ভালোবাসি! সো নো দা ডিফারেন্স! দুই সাইড থেকেই ভালোবাসার দায়িত্বটা আপনার কাছেই চলে আসছে!

যখন "আমারটা "নামাজ পরে আসতো. আমি জিজ্ঞেস করতাম. আমার জন্য দোয়া করতো? "আমারটা" উত্তর দিত আমার নামাজে, তোমার জন্য দোয়া ফিক্সট! আমি এখনো বিলিভ করি সে আমাকে মিথ্যা বলেনি!

সে হয়তো বলেছে- রিদি যেন আমাকে কোনদিনও না ভুলে! রিদি যেন আমাকে জীবনে ভালোবাসা না কমায়! এবং দুইটাই আল্লাহ কবুল করে নিয়েছে। ভুলে যাওয়া তো দূরের কথা, ভালোবাসা ও একফোঁটা কমেনি


৭: Kosto- Short Story - ছোট গল্প - নিঃস্বার্থ প্রেমে কষ্ট হবার কথা নয়।


আচ্ছা একবার ভাবুন তো, যাকে ভালোবাসেন, সে ত মারা যায়নি বা তার তো কোন অনিষ্ট হয় নি, তিনি তো সুস্থদেহেই বিরাজ করছেন, তাহলে কষ্ট হয় কেন?

কষ্ট পাওয়ার কারন আপনার ভালোবাসা নয়, ভালোবাসার বদলে ভালোবাসা পাওয়ার আকাঙ্খা। আপনি তার সাথে থাকতে পারবেন না, তাই কষ্ট।

নিঃস্বার্থ ভালোবাসা কষ্ট দেয় না, দিতে পারে না। আসলে আপনি পরিবর্তে ভালোবাসা ফেরত পেতে চান। এই expectation আপনাকে কষ্ট দেয়। আসলে এটা অনেকটা insurance policy মত।

আপনি আপনার জীবনের একটি বড় অংশ emotionally invest করেছেন আপনার ভালো লাগা মানুষটির জন্য, এখন তা আপনি সুদে আসলে ফেরত পেতে চান। আপনি সেই মানুষটির মধ্যে আপনার করা investment টিকে ভালোবাসেন, মানুষটিকে নয়।

আকাঙ্খা কষ্টের জন্ম দেয়, নিস্কাম, নিঃস্বার্থ প্রেমে কষ্ট হবার কথা নয়।


৮: Valobashar Short Story - ছোট গল্প - ভালোবাসার কষ্টের ময়না পাখি


প্রেমের শুরুতে আমি প্রাক্তনের জান, ময়না পাখি ছিলাম।

মাঝামাঝি সময়ে তার কথিত কলিজার বউ হয়ে গেছি নিজেও টের পাইনি।
আর ব্রেকাপের আগে পরে, আজাইরা প্যারা, বিরক্তিকর, ছ্যাচড.

তবে হ্যা আমি ছ্যাচড়া কারণ আমি তোমার দেওয়া গিফট যত্ন করে রেখেছি..

৯: Short Story - অনুগল্পঃ নীল শাড়ি: 

মেয়েটির সাথে পরিচয় ফেসবুকে। তখন আমি সবে লিখালিখি শুরু করি। মেয়েটি প্রথমে আমার পাঠিকা ছিলো। তারপর ধীরে ধীরে মেয়েটি আমার বন্ধুত্বে পরিণত হয়। মেয়েটি একটু দুষ্টু টাইপের ছিলো। সব সময়ই মজা করতো। মেয়েটির সাথে প্রতিদিনই টুকটাক মেসেজ হতো। ওর এই হাসি আর দুষ্টুমি গুলোই আমার ভিতরটাকে আঁকড়ে ধরেছে। আমার স্বপ্নে মহারানীর রূপ নিয়ে আসছে। রাতের ঘুম কেড়ে নিয়েছে। ভালোবাসতে শিখিয়েছে।

আজ বুধবার। এই সপ্তাহের শুক্রবার ওর সাথে দেখা করার কথা। ভাবতেই ঠোঁটের কোনার হাসির রেখা ফুটে উঠে। বড্ড বেশিই ভালোবাসি দুষ্টুটাকে। বিদাতা কি যে এক মায়া দিয়ে ওকে সৃষ্টি করেছে। তা কেবল তিনিই ভালো যানে৷

মেয়েটির নাম ফাতিমা। কেবল ইন্টার সেকেন্ড ইয়ারে পড়ে। ফাতিমাকে কখনো আমি নিজ চোখে দেখিনি। ও দেখতে কেমন? ওর হাসি কেমন? ও হাসলে ওর গালে টোল পড়ে কিনা? কিছুই জানা না। ওর খুব পছন্দ ছিলো নীল শাড়ি। ওকে বলেছিলাম যেদিন আমরা দেখা করবো ও নীল শাড়ি পড়ে আসবে। আর আমি নীল পাঞ্জাবি। বেশ ভালোই মানাবে দুজনকে তাই না?

আজ শুক্রবার। সকাল বেলা। চায়ের কাপ নিয়ে সোফায় উপর বসে আছি। অনেকক্ষণ ধরে ফাতিমাকে ফোন দিয়ে যাচ্ছি। ওর ফোন বন্ধ। টিভিটা অন করতেই চোখের সামনে একটা ব্রেকিং নিউজ ভেসে আসে। গতকাল রাতে কিছু বখাটে ছেলে মিলে ফাতিমা নামের একটি মেয়েকে ধর্ষণ করে হত্যা করেছে। নিউজটা দেখেই চোখ কপালে উঠে যায়। মনকে বুঝ দিলাম এ হয়তো অন্য কোন ফাতিমা এ আমার ফাতিমা না।

ল্যাপটপ অন করে ফেসবুকে ডুকি৷ ফাতিমার আইডিতে যেয়ে দেখি কাল রাতে ফাতিমা তার একটি পিক আপলোড দিয়েছে। এ ফাতিমা আর অন্য কেউ না। ব্রেকিং নিউজে দেখা সেই ফাতিমাই। লেখক:- মাহফুজুর রহমান আশিক


১০: Sad Short Story - ছোট গল্প: 

একটু কঠিন হতে শিখো প্রিয়, অতিরিক্ত সহজ হলে মানুষ যে ঠকায় ভীষন!'


১১: ব্রেকাপ Short Story - ছোট গল্প - আমি তোমার থেকে ভালো কাউকে পেয়ে গেছি, এই কথাটা সরাসরি বলা যায় না।


তাই কথাটা ঘুরিয়ে বলতে হয় তুমি আমার চেয়ে ভালো কাউকে পেয়ে যাবে। এই কথার অর্থ হল, যে আপনাকে এই কথাটা বলবে সে আপনার থেকে ভালো কাউকে পেয়ে গেছে। তাই সে আর আপনার সাথে সম্পর্ক রাখতে চায় না।

১২: ব্রেকাপ Love Short Story - প্রেমের ছোট গল্প কষ্ট-  মেয়েটির মাথায় এখন কি আমি আছি নাকি অন্য কেউ?


ছয়মাস হবে একটি মেয়ের সাতে রিলেশন আছে আমার। সে তিনমাস আমায় নিয়মিত এসএমএস বা কল দিতো, এখন দেয়না। গতকাল হঠাৎ মিস্কল দিলো আমি ব্যাক করলাম, কেমন আছো জিগ্যেস করলাম কেন এতদিন পর তাও জিজ্ঞেস করলাম, বল্লো সময় হয়ে উঠেনা। 

দুইমিনিট কথা বলার পর আমায় জিজ্ঞেস করলো, আমার সাথে কথা বলতে না পেরেছো তাই অন্য কারো সাথে কথা বলেছো বা রিলেশন করেছো এরকম জিজ্ঞেস করাতে আমি অবাক হয়ে গেলাম।

তাকে বল্লাম, তোমায় ভালোবাসি, তোমাকে ছাড়া অন্য কাউকে ভাবলেও আমার পাপ হবে এইটুকুই বলেছি, এরপর বল্লো আম্মু ডাকে বলে লাইন কেটে দিলো৷ আমি কিন্তু দেশের বাহিরে এখন।

সবার কম্মেন্ট আশা করছি, মেয়েটির মাথায় এখন কি আমি আছি নাকি অন্য কেউ? অভিজ্ঞ ছ্যাঁকা প্রাপ্তদের কাছে হেল্প চেয়েছি।

Post a Comment

0 Comments